মলদ্বারে নালী ঘায়ের হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা

Homeopathic treatment for anal Fissure

ফিস্টুলা কি ?
মরদ্বার বা সরলান্ত্রের পাশে বিধান তন্তুর অভ্যন্তরে এক প্রকার নালী ঘায়ের সৃষ্টি হয়।এই নালীঘাকে ভগন্দর বা ফিস্টুলা বলে।
কারনঃ
১.কোষ্ঠকাঠিন্যের জন্য মলত্যাগ কালে অতিরিক্ত কুস্থন।২.অনেক সময় মলদ্বার ফেটে যায়,রক্ত পড়ে।৩.অর্শ হেতু মলদ্বারে ফোঁড়া এবং সেখান থেকেই ভগন্দর।৪.মলদ্বারে ক্ষত হতে ধীরে ধীরে নালী ঘা।৫.কোন কঠিন রোগের উপসর্গ হিসাবে।৬.জীবাণু সংক্রামণ।
ফিস্টুলা কত প্রকারভেদ ঃ
১)যদি সরলান্ত্রের বাইরে ফোড়া হয়ে মলদ্বারে ইহার মুখ বাহির হয় তাহাকে Blind External Fistula।২)যদি সরলান্ত্রের শ্লৈষ্মিক ঝিল্লিতে প্রদাহ এবং ফোড়া হয়ে ক্ষত হয় এবং ঐ ক্ষতের একটি মুখ সরলান্ত্রের ভিতরের দিকে থাকে এবং অন্য মুখটি মলদ্বারের বাইরে থাকে তবে ইহাকেComplete fistula বলে।৩)যদি সরলান্ত্রে ফোড়া হয়ে সেই স্হানেই থাকে,বাইরে না আসে ইহাকে Blind Fistula বলে।

ক)সাধারণ ফিস্টুলা : এটি মলদ্বারের মাংশপেশির খুব গভীরে প্রবেশ করে না বিধায় চিকিৎসা সহজসাধ্য।

খ)জটিল ফিস্টুলা : এর বিভিন্ন প্রকার ভেদ রয়েছে এবং এবং তা নির্ভর করে এর নালটি মলদ্বারের মাংসের কতটা গভীরে প্রবেশ করেছে এবং কতটা বন্ধুর পথ পাড়ি দিয়ে এটি বাইরের মুখ পর্যন্ত এসেছে।এগুলোর চিকিৎসা সত্যিকার দুঃসাধ্য।তারপর যদি এ নালি একের অধিক হয় তাহলে তো আর কথাই নেই। এ রোগের অপারেশনের প্রধান প্রতিবন্ধকতা হল সঠিকভাবে অপারেশন সম্পাদন করতে ব্যর্থ হলে রোগী মল আটকে রাখার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলতে পারে।
ফিস্টুলা বা ভগন্দরের লক্ষণ বা উপসর্গঃ
এ রোগের লক্ষণ মূলত তিনটি।যেমন- ১.ফুলে যাওয়া,২.ব্যথা হওয়া এবং ৩.নিঃসরণ বা পুঁজ ও আঠাল পদার্থ বের হওয়া।বেশিরভাগ রোগীই আগে মলদ্বারে ফোড়া হয়েছিল বলে জানান।ভেতরে ফোড়া হাওয়ার জন্য ফুলে যায় এবং ব্যথা হয়।যখন এগুলো ফেটে মুখ দিয়ে কিছুটা পুঁজ বের হয়ে যায় তখন ব্যথা এবং ফোলা কমে যায়।নিঃসরণ বা পুঁজ পড়া সাধারণত মাঝে মাঝে হয়। কখনও কখনও ২-৪ মাস রোগটি সুপ্ত থাকে।
কখনও কখনও মলের সঙ্গে পুঁজ ও আম পড়তে থাকে।সমস্যা একটানা না থাকার কারণে রোগীরা অনেক সময় ভাবেন যে সম্ভবত ভালো হয়ে যাবে।কিন্তু দু’চার মাস পর আবার যখন একই সমস্যা দেখা দেয় তখন চিকিৎসকের কাছে আসে।।

ফিস্টুলার হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় ব্যবহৃত ঔষধের বর্ণনাঃ

হিপার সালফঃ-ভগন্দর পীড়ার প্রথম অবস্হায় যখন মলদ্বারে স্পর্শকাতর বেদনা, মলদ্বারের এক পাশে ফুলে অত্যন্ত ব্যথা।মলদ্বার চেপে বসতে পারে না।এই স্পর্শ কাতর বেদনায় হিপার সালফ প্রযোজ্য।রোগী যদি দৈহিক ও মানসিক ভাবে অত্যন্ত অনুভূতিপ্রবণ, সামান্য কারণে বিরক্তি প্রকাশ করেন তাদের জন্য হিপার সাল্ফ উপযোগী।

বেলেডোনাঃ ফিস্টুলার প্রথম অবস্হায় মলদ্বার লাল বর্ণ ,অত্যন্ত দপদপানি বেদনা,রোগী রক্তপ্রধান হলে বেলেডোনা প্রয়োজন হয়।

ফসফরাস ঃফসফরাস রোগীর রক্তাপাতের প্রবনতা দেখা যায়।রোগীর মল লম্বা ও কঠিন হয় সাথে প্রচুর রক্তপাত হয় এবং কোন ভাবেই সেই রক্তপাত বন্ধ না হলে ফসফরাস উপযোগী।

মাইরিষ্টিকাঃমলদ্বারের ফোড়ার ব্যথা যন্ত্রনার প্রথমাবস্থায় প্রয়োগ করলে ফোড়া বসে যায়।দ্বিতীয় অবস্থায় পাঁকার মত অবস্থা হলে এটির প্রয়োগে ফোড়া ফেটে যায়।ফিস্টুলার চিকিৎসায় মাইরিস্টিকা যে কোন অবস্হায় প্রয়োগ করা যায়।

পিওনিয়াঃ-মলদ্বার সবসময় রসে ভিজা থাকে,টাটানি ব্যথা,পুজ পড়ে ইত্যাদি লক্ষনে এটি উপকারী।মলদ্বারে দীর্ঘস্হায়ী বেদনা থাকে,মলদ্বারে তীব্র বেদনা হাটতে পারে না,মলের সাথে রক্ত মিশ্রিত থাকে।পেটে বেদনা সহ উদরাময়ের সাথে ফিস্টুলা থাকলে পিওনিয়া উপযোগী ঔষধ।

র‌্যাটানহিয়াঃ-সর্বদাই মলদ্বারে রস ঝরে।জ্বালা করে,সেই জ্বালা ঠান্ডা পানিতে উপশম হলে এটি উপকারী।মল শক্ত,মলত্যাগের সময় অত্যন্ত কোথানি,টাটানি বেদনা থাকে এবং বেদনা মলত্যাগের পরেও থাকে।মলদ্বারে যেন কাচের টুকরা দ্বারা খোচানো হচ্ছে এরুপ মনে হয়।মলদ্বার ফেটে যায়,রেকটামে অত্যন্ত বেদনা ও জ্বালা থাকে।

অরাম মিউরঃ-ভগন্দর পীড়ার উত্তম ঔষধ।এই ঔষধ ব্যবহারে রোগী আরোগ্য হয়।

এসিড ফ্লোরঃ-রোগী অত্যন্ত গরম কাতর, মলদ্বারে যন্ত্রনা ঠান্ডায় আরাম হলে এসিড ফ্লোর অব্যর্থ।মলদ্ববরে জ্বালা ভাব আছে।

মেডোরিনামঃ-মলদ্বার থেকে মাংস ধোয়া পানির মত দূর্গন্ধ রস ঝরিলে মেডোরিনাম অব্যর্থ।

সাইলেসিয়া:মলদ্বার হতে পাতরা দুর্গন্ধযুক্ত রস ঝড়লে সাইলেসিয়া উপযোগী।

নাইট্রিক এসিডঃপ্রস্রাব দুর্গন্ধযুক্ত রোগীর মলদ্বারে অত্রন্ত জ্বালা,মলত্যাগের সময় কাটিয়া ফেলার মত বেদনা করে,মলদ্বার হতে পাতলা সবুজ রস স্রাব হয়।মলদ্বারের জ্বালায় রোগী সর্বদা কাতর থাকে।রোগীর মলত্যাগের কয়েক ঘন্টা পর্যন্ত বেদনা থাকে।

সালফার ঃযেই রোগীদের ক্ষেত্রে মল শুকনা ও শক্ত হয়ে যায় তাদের জন্য সালফার সব থেকে প্রয়োজনীয়।রোগী ব্যথার ভয়ে টয়লেটে যেতে চায় না।সালফার তার ব্যাথা হ্রাস ও মল নরম করতে সাহায্য করে।ফুস্কুড়িড় কারণে মলদ্বার মধ্যে জ্বালা হলে সালফার ব্যবহারের সঙ্গে নিয়ন্ত্রিত হয়।সালফার সকল প্রকার ফিস্টুলার প্রতিকার হিসেবে প্রয়োজন,যে সকল সোরাদোষের রোগীর ফিস্টুলা হয় তাদের চিকিৎসা সালফার দিয়ে শুরু করতে হবে।কখনও কখনও মলদ্বার হতে সবুজ বা হলুদ রস স্রাব হয়।

সিডাম আরসিঃএটি একটি কম পরিচিত হোমিওপ্যাথিক ঔষধ হতে পারে,কিন্তু সেডাম আরসি ফিস্টুলার মলদ্বারের সংকোচনশীল বেদনা নিরাময়ে উপযোগী।

এলুমিনাঃহোমিওপ্যাথিক ওষুধ অ্যালুমিনিয়া যখন কোষ্ঠকাঠিন্য সবচেয়ে খারাপ ধরনের হয়।রোগা পাতলা,নোংড়া,নম্র স্বভাব,মন প্রফুল্ল।তার সময় যেন কাটে না এক ঘন্টাকে অর্ধেক দিন মনে করে।চোখ বন্ধ করলে,পরে যাবে টলমল করে।মল খুব দীর্ঘ।মলটি শক্ত,আম যুক্ত এবং বের হতে কষ্ট হয়,নরম কাদার মত মল মলদ্বারে লেগে থাকে।মলদ্বারে ফাটল এবং রক্তপাতে প্রধান ঐষধ।গর্ভাবস্থায় মায়েদের রেক্টামের ক্রিয়াহীনতায় মলত্যাগে কষ্ট হয়।

নেট্রাম মিউরঃমলদ্বার যেন ছোট হয়ে গেছে-মলত্যাগের পর মলদ্বার ছিঁড়ে যায়,রক্ত পড়ে, টনটন করে,যন্ত্রনা হয়। হোমিওপ্যাথিক ওষুধ নেট্রাম মিউর যখন শক্ত এবং শুষ্ক হয় তখন সহায়তা করে।মলদ্বার সংকোচন কারণে ক্ষণস্থায়ী যখন মলে ঘর্ষণ হয়।রক্তপাত এবং জ্বলন্ত ব্যথায় এটি কার্যকর।

এলো সাইকোট্রিনাঃমলদ্বারে আঙ্গুরের থোকার মত ,বলি নীল বর্ণ ,ঠেলা মারা বেদনা, রক্তস্রাবী ক্ষতভাব ছোয়া লাগানো যায় না মলদ্বারে গরম ভাব,ঠান্ডা পানিতে আরাম।মলদ্বারে চুলকানী ও জ্বালার জন্য ঘুমাতে পারে না।

ল্যাকেসিসঃ-অত্যন্ত দপদপানি ব্যাথা থাকে,কাশি দিলে মলদ্বারে হুল ফোটার মত মনে হয়,আর মনে হয় কী একটা পদার্থ যেন মলদ্বারে আটকে আছে।তার জন্য রোগী কোঁথ দেয় এবং এমন ব্যা্থা হয়,যে ব্যথায় রোগী দাড়াইয়া উঠিয়া পরে।মলদ্বার যেন বন্ধ হয়ে আসে।ল্যাকেসিস রোগীর মলে অত্যান্ত দুর্গন্ধ থাকে।

কষ্টিকাম ঃকাষ্টিকাম ফিস্টুলার একটি প্রয়োজনীয় ঔষধ।রোগীর মলদ্বারে ক্ষত হওয়ার জন্য রোগীকে অনেক কষ্ট লাগে।রোগী দাঁড়িয়ে থাকলেই সহজেই মল ত্যাগ হয়ে যায়। মলদ্বারে এবং রেকটাম অঞ্চলে ব্যথা এবং জ্বলন্ত ব্যথা আছে।মলগুলি খুব কঠিন,পেরিনিয়ামের চারপাশে ব্যথা।

হাইড্রাস্টিস ক্যানঃহাইড্রাস্টিস হঠাৎ কোষ্ঠকাঠিন্য সঙ্গে মলদ্বার fistula জন্য চমৎকার ঔষধ।রোগা কোষ্ঠকাঠিণ্যের রোগীর জন্য উপযোগী ঔষধ।

বার্বারিস ভলগারিসঃ মলদ্বারের ব্যাথাযুক্ত ফিস্টুলার রোগীর জন্য উপযোগী।মলদ্বারের কাছের অঞ্চলেও বেদনা তাকলে উপযোগী।মলত‍্যাগে কষ্ট ও জ্বালা থাকে।

ক্যালকেরিয়া সালফ ঃক্যালকেরিয়া সালফ ফিস্টুলার রোগীর জন্য প্রয়োজনীয় ঔষধ।ফিস্টুলা হতে হলুদ বর্ণের পুজস্রাব হলে উপযোগী।

ব্যাসিলিনামঃ রোগীর অত্যন্ত কোষ্ঠবদ্ধতা।অত্যন্ত পচা গন্ধযুক্ত মল ও বায়ু হয়,মলত্যাগে অত্যন্ত জ্বালা।ব্যাসিলিনামকে ফিস্টুলার অন্তর্বর্তী প্রতিকার বলে মনে করা হয়,বিশেষ করে টিউবারকুরার রোগীদের,যাদের ঠান্ডা লাগার প্রবনতা বেশী।মলদ্বার হতে মাঝে মাঝে রক্ত ঝড়ে।টিউবারকুলার মায়াজমের রোগীর ক্ষেত্রে ব্যাসিলিনাম গুরুত্বপূর্ণ ঔষধ।
মলদ্বারের নালী ক্ষতের ঔষধ নির্বাচন(কেন্ট রেপার্টরি)ঃ

FISSURE : Æsc., agn., all-c., alum., ant-c., arg-m., ars., arum-t., berb., calc-f., calc-p., calc., carb-an., caust., Cham.,cond., cur., fl-ac., Graph., grat., hydr., ign., kali-c., lach., Lues., med., merc-i-r., merc., mez., mur-ac., nat-m., Nit-ac.,nux-v., pæon., petr., phos., phyt., plat., plb., Rat., rhus-t., Sep., sil., sulph., Thu.
++ FISTULA : Aloe., alum., ant-c., Aur-m., aur., bell., Berb., bry., cact., Calc-p., calc-s., Calc., carb-s., Carb-v., Caust.,fl-ac., graph., hep., hydr., ign., Kali-c., kreos., lach., Lues., lyc., merc., Nit-ac., petr., phos., puls., sep., Sil., staph., sulph., th

******সমস্যা আছে ? সমাধানের পথও আছে।
“হটলাইন AMARHOMOEO.COM” আপনাদের সাথে নিয়ে খুঁজবে সমাধানের পথ।******* জরুরী বিজ্ঞপ্তি ******হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা সহজ সরল,পার্শপ্রতিক্রিয়াহীন ও প্রাকৃতিক।হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা নিন।সুস্হ্য থাকুন। *******dr ai adnan sami //dr Razmina Akter Rakhi01934981471
Syed homoeo Hall
forest rode,madrasha market,Sherpur,bogura.
WWW.Amarhomoeo.com/01721418696,01934981471

Send Message / বার্তা পাঠান / ম্যাসেজ / Chat এ আপনার সমস্যার কথা লিখে পাঠান । তা হলে আপনার সমস্যার কথা অন্য কেউ দেখতে বা পড়তে পারবে না । শুধু মাত্র amarhomoeo এর ডাক্তার আপনার সমস্যার কথা পড়তে বা দেখতে পারবে । এতে গোপনীয়তা বজায় থাকবে । নির্ভয়ে খুলে বলুন সমস্যার কথা ।#গোপন_সমস্যার_স্থায়ী_সমাধান; দয়া করে আগে সবটুকু পড়ুন : অতিরিক্ত হস্ত মৈথুন বা অন্য যেকোন কারণে যাদের স্বাভাবিক যৌন ক্ষমতা হারিয়ে ফেলেছেন, বীর্য পাতলা হয়ে গেছে, লিঙ্গের স্বাভাবিকতা নষ্ট হয়ে, ছোট, বাঁকা, আগা মোটা ও গোড়া চিকন হয়ে গেছে, উত্তেজনার সময় পর্যাপ্ত শক্ত না হওয়া, মিলনে দ্রুত বীর্যপাত হয়ে যাওয়া, এবং দেহ ও মনে যারা অবসাদগ্রস্থ তাদের জন্য Dr adnan sami homoeopathy treetment হতে পারে আশার আলো।
ইহা সেক্স হরমোন ব্যালেন্সের মাধ্যমে বীর্যকে অত্যন্ত ঘাঢ় করে এবং লিঙ্গকে করে সর্বোচ্চ দৃঢ়। homoeo pathi দেহে মেটাবলিজম বাড়ায়, ফলে দেহ ও মনের সকল অবসাদ দূর করে ইহা আপনাকে দিবে অফুরন্ত তারুন্যের প্রাণশক্তি।ভেজালের এই যুগে ৯০% সেক্সুয়াল প্রডাক্টই “সিলডেনাফিল সাইট্রেট” নামক অত্যন্ত ক্ষতিকারক কেমিকেল দ্বারা তৈরী, যা আপনার প্রাকৃতিক যৌন উত্তেজনাকে চিরতরে নষ্ট করে দেয়, আপনার কিডনী ও লিভার সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় এমনকি ব্রেইনষ্ট্রোকের ও কারণ হয়ে দাঁড়ায় “সিলডেনাফিল সাইট্রেট” সমৃদ্ধ সকল ধরনের ওষুধ।homoeoপৃথিবীতে ২০০০ বছর ধরে সর্বাধিক ব্যবহৃত তারুন্য ও যৌবন ধরে রাখার আদিম রিপু.সম্পুরক।ইহা দেহের সক্ষমতা বাড়াতে আদিম যুগ থেকে সেবন করে আসছে এই homoeo। দয়া করে গুগুলে এ ব্যপার একটু সার্চ করে এর সত্যতা যাচাই করে নিন।পৃথিবীর যেকোন অঞ্চলের মানুষদের থেকে german গড় আয়ু বেশি, কারণ তারা সাড়া জীবন homoeo খায়। সুতরাং dr adnan sami homoeopathy online service homoeopathiখেলে যে আপনার শুধুমাত্র সেক্সুয়াল সমস্যা দূর হবে তাই নয়, এটি আপনার দেহের সার্বিক রোগ প্রতিরেধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করবে। তাই প্রকারান্তরে homoeo pathy ডায়বেটিকস ও হ্রাস করবে।স্পার্ম কাউন্ট কম থাকার কারনে যাদের বাচ্চা হয়না Homeopathyখেলে তাদের বাচ্চা হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে।পুরুষাঙ্গ নিয়ে আপনার ভুল ধরনা। পুরুষাঙ্গ কত লম্বা প্রয়োজন ?
বাঙ্গালীদের পুরুষাঙ্গ সাধারণত ৫-৬” লাম্বা হয়।কিন্তু প্রত্যেকেই তার পুরুষাঙ্গ নিয়ে বেশ চিন্তায় থাকে।কিভাবে আরো বড় করা যায়।তাদের জন্য এই আর্টিকেল।

একজন মহিলার যৌন সেশনকে বেশী মাত্রায় পরিতৃপ্ত করতে তার পুরুষ সঙ্গীর যৌনাঙ্গের আকার – আকৃতি বা পরিমান- পরিমিতি প্রভাবিত করে না৷ এর পরিমিতি মহিলার যৌন চাহিদা পরিতৃপ্ত করতে পারে না৷ যখন সাইজের প্রশ্ন আসে তখন সবার জন্য এক রকম সাইজ কার্যকরী হয় না৷ তাই যৌন কার্যে এটি একটি আপেক্ষিক বিষয়৷

বেশী বড় পুরুষ যৌনাঙ্গ কখনই মহিলাদের খুব বেশী Stimulate করতে পারে না৷ যৌন কার্যকালে গর্ভাশয়ের আগে পর্যন্ত পুরুষ যৌনাঙ্গ পৌঁছলেই তা পরিতৃপ্তির কারণ হয়৷ তা না হলে সঙ্গমকালীন যৌন পরিতৃপ্তি তেমন সুখকর হয়ে ওঠে না৷ এই পরিস্থিতিতে ক্ষেত্রে মহিলারা Satisfied হয় না৷

লিঙ্গ প্রাকিৃতিক ভাবে ছোট বা বড় হয়ে যায়না। এটি শুধু উত্তেজনার সময় পর্যাপ্ত রক্ত সঞ্চালনের মাধ্যমে আকার পরিবর্তন করে। যৌন তৃপ্তির জন্য আকার মুল বিষয় নয়। প্রধান বিবেচ্য বিষয় হচ্ছে মিলনে এবং সিঙারে আপনার কারুময়তা। আপনি যত বেশি সৃষ্টিশীল পদ্ধতিতে নারীকে “অন” করবেন সে তত বেশি আপনার পার্সোনলিটির প্রতি আবেগী হবে।

লিঙ্গ বড় করে আপনার লাভ কি আপনি কখনো শুনেছেন কোন নারী বড় লিঙ্গে পরিতৃপ্তি পেয়েছে বা বারতি আনন্দ উপভোগ করছে ? আসলে এটা আমাদের একটা ভুল ধারণা। অনেক পুরুষ কিংবা নারী পর্ন ফিল্ম দেখে লিঙ্গের আকার এবং মিলেনের সময় নিয়ে নিজের মধ্যে একপ্রকার নেগেটিভ ধারনা করে রাখে। তাঁদের সব কিছুই পরিকল্পিত হয়ে থাকে কারণ এক একটি পর্ন ফিল্ম অনেক দিন ধরে শুটিং করে থাকে তাই ফিল্ম এর সাথে নিজের বাস্তবতা মিলাতে যাবেন না।

আপনার লিঙ্গের আকার আপনার বংশ বা জাতির উপর নির্ভর করবে। তাই এটা নিয়ে চিন্তার কোন কারণ নাই।

আপনার যৌন সমস্যায় ইনবক্সে আমাদের অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন।

যৌন শিক্ষা – জীবনের জন্য শিক্ষা। like/comment/share করতে সাহসী হউন – নিজের এবং অন্য বন্ধুদের তথ্য জানায় সহায়তা করুন। যৌনতা ছাড়া জীবন অচল – তাই সংসারে সুখের জন্য যৌন শিক্ষা নিন।
আপনি এর সত্যতা যাচাই করে নিন google সার্চ করুন “amar homoeo Dr adnan sami 01721418696.01934981471 homoeopathy লিখে /
আপনি homoeo treetment amar homoeo online serviceনিতে চাইলে আমাদের নম্বরে কল করুন।
আমরা সাড়া দেশে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে কন্ডিশন সিষ্টেমে homoeo pathy treetment করে থাকি। শুধু মাত্র অনলাইনে, butঅর্ডার করতে শুধুমাত্র কুরিয়ার সার্ভিসের চার্জ 150= টাকা বিকাশে অগ্রীম পাঠাতে হবে। আপনার এলাকার কুরিয়ার অফিসে জমা দিয়ে কোন রকম ঝুঁকি ছাড়াই ও গোপনীয়তা বজায় রেখে আপনি homoeo pathi medicine গ্রহন করতে পারবেন।
#বিঃ_দ্রঃ_ দেশে ও দেশের বাহিরে চলছে, আগ্রহীরা দ্রুত যোগাযোগ করুন !!

👉 * অনলাইনে রোগী দেখে কুরিয়ারে ঔষধ পাঠানো হয় । সমস্যা মনে হলে chambar a থেকে চিকিৎসা নিতে পারেন । ধন্যবাদ
INFERTILITY OF MEN
(সন্তান জন্মদানে অক্ষম পুরুষ)
সাধারনতঃ যে সব দম্পতির সন্তান হয় না তাদের পুরুষ সঙ্গীদের সন্তান উৎপাদনের ক্ষমতা পরীক্ষার অংশ হিসেবে অন্নান্য পরীক্ষার সংগে শুক্র পরীক্ষা (Semen Analysis) করা হয়।Chemical Analysis of Homeopath/Similar System Medicines এই দৃষ্টভঙ্গির গবেষক ও চিন্তাবিদ পন্ডিত ডাঃ সমরেশ চন্দ্র রায় শুক্র পরীক্ষায় (Semen Analysis) যে সব অস্বাভিকতা পরিলক্ষিত হবে তা নিরাসনে হোমিওপ্যাথি ঔষধ রাসায়নিক বিশ্লেষণের প্রক্রিয়ায় প্রায়োগিক দৃষ্টিভঙ্গি উপস্থাপন করছেন।শুক্র এক ধরনের তরল সাদা পদার্থ যা সঙ্গমের সময় বা মৈথুনের সময় পুরুষের লিঙ্গ দিয়ে বের হয়।এর মধ্যে থাকে প্রোস্টেট গ্রন্থির রস, শুক্রকীট, শ্বেতকনিকা, কোলেস্টেরল, চর্বি স্ফীত, স্ফটিক, এপিথেলিয়াল কোষ, রাসায়নিক দ্রব্য ফ্রুকটোজ। # শুক্রের স্বাভাবিক অবস্থাঃ *শুক্রের পরিমান (Volume) -২-৫মিঃলিঃ। *রং (Colour)- সাদা/হলুদাভ। *গন্ধ (Odour)- মাছের মত। *প্রতিক্রিয়া Reaction)- ক্ষারযুক্ত (৭•০-৭•৪PH) । *সর্বমোট গণনা (Count)- 40-100Million (৪কোটি- ১০কোটি/ মিঃলিঃ *গতিবেগ (Motility)- প্রাথমিকভাবে ৭০-৯০%,২ ঘন্টা পর ৬০-৭০%। *চেহারা (Morphology)- স্বাভাবিকভাবে ৭০%-৯০% স্বাভাবিক চেহারার হয়। *ফ্রুক্টোজ (Fructose) এর মান- ১২০০মাইক্রোগ্রাম/ মিঃলিঃ। * এসিড ফসফাটেজ (Acid Phosphatase) এর মান- ১০০-৩০০ মাইক্রোগ্রাম/ মিঃলিঃ। # শুক্র পরীক্ষার ফলাফল এবং এরমূল্যায়নঃ *সর্বমোট গনণাঃ ২০Million (২কোটি)/মিঃলিঃ নীচে শুক্রকীটের সংখ্যা হলে ব্যক্তির সন্তান উৎপাদনের জন্য অযোগ্য হবে। *গতিবেগঃ সন্তান উৎপাদনের জন্য অন্ততঃ পক্ষে ২৫% শুক্রকীটের গতিবেগ থাকতে হবে।৪০% এর নীচে হলে সন্তান উৎপাদনের জন্য খারাপ লক্ষন। # চেহারাঃমাথার অস্বাভাকিতা, লেজের অস্বাভাবিকতা থেকে বেশী গুরুত্বপূর্ণ।এই অস্বাভাবিকতার মধ্যে আছে গোলাকৃতি, দুই মাথা এবং দুই লেজযুক্ত শুক্রকীট। # শুক্র পরীক্ষায় ব্যবহৃত কিছু সংজ্ঞাঃ *Azoospermia (অযুস্পারমিয়া) : শুক্র পরীক্ষায় কোন শুক্রকীট না পাওয়া গেলে। *Oligospermia (অলিগস্পারমিয়া) : শুক্রকীটের গুনগত ও পরিমানগত মানের অবনতি হলে।
*Hyperzoospermia (হাইপারজুস্পারমিয়া : শুক্রকীটের সংখ্যা ২৫ কোটির বেশী হলে। *Asthenospermia (এস্থেনোস্পারমিয়া) : শুক্রকীটের গতিবেগ কম হলে। *Teratozoospermia (টেরাটোজুস্পারমিয়া) : শুক্রকীটের চেহারা ও আকৃতি অস্বাভাবিক হলে। *Hematospermia (হেমাটোস্পারমিয়া) : রক্ত মিশ্রিত শুক্র। Normospermia (নরমোস্পারমিয়া) : যখন শুক্রকীটের সংখ্যা ২০ মিলিয়ন থেকে ১০০ মিলিয়নের মধ্যে থাকে। # শুক্রকীটের সংখ্যাগত মান কম হওয়া,গতিবেগের সংখ্যাগত মান কমে যাওয়া, চেহারা অস্বাভাবিকতা নিরাময়ে নির্ধারিত ভেষজসমূহঃ- *Tribulus Terristris- ধারনকৃত রাসায়নিক উপাদান Steroidal Saponins এই রাসায়নিক উপাদান শুক্রকীট উৎপাদন, পরিমান, গুনগতমান, গতিবেগ ও স্বাভাবিক চেহারা উন্নয়নে কাজ করে থাকে। *Lepidium Meyenil ধারনকৃত রাসায়নিক উপাদান Saponins এই রাসায়নিক উপাদান Tribulus Terisstris এর রাসায়নিক উপাদানের অনুরূপ কাজ করে। *Ginseng ধারনকৃত রাসায়নিক উপাদান Flavonoid Ginsenosides এই রাসায়নিক উপাদান শুক্রকীট উৎপাদনে কাজ করে। *Crocus Sativus ধারনকৃত রাসায়নিক উপাদান Picrocrocin, Glycosides, Vitamin B6, B12, C, E এই সব রাসায়নিক ও পুষ্টি উপাদান Ginseng এর রাসায়নিক উপাদানের অনুরূপ কাজ করে। *Sabal Serrulata ধারনকৃত রাসায়নিক উপাদান Beta-Sitasterol এই রাসায়নিক উপাদান Ginseng এর রাসায়নিক উপাদানের অনুরূপ কাজ করে। *Withania Somnifera ধারনকৃত রাসায়নিক উপাদান Withanolids এই রাসায়নিক উপাদান শুক্রকীটের গুনগত ও পরিমানগত মান বৃদ্ধিতে কাজ করে। *Apium Graveolens ধারনকৃত পুষ্টি উপাদান Vitamin- K,Sodium, Megnesium এই পুষ্টি উপাদান Withania Somnifera এর রাসায়নিক উপাদানের অনুরূপ কাজ করে।

👉 * অমাদের থেকে ঔষধ কিনলে ঔষধের সাথে খাবার নিয়ম লিখে দেওয়া হয় । ওয়েব সাইট থেকে ঔষধ ক্রয় করতে ভিজিট করুন —> www.AmarHomoeo.com

👉 * Money Security – আপনার টাকার নিরাপত্তা কি ? বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন ——> www.amarhomoeo.com

👉 * ওয়েব সাইট থেকে কোন ঔষধ ক্রয় করতে কি ভাবে বিল পরিশোধ
করবেন তা জানতে ভিজিট করুন —> www.AmarHOmoeo.com

👉 * আমাদের সরাসরি রোগী দেখার ব্যবস্থা ।

ফোন : 01721418696,01934981471.01797152527
( বাংলাদেশ সময় সকাল ১০ টা থেকে বিকেল ৫ টা )
dr adnan sami

👉* আমাদের ফ্রী প্রেসক্রিপশন সেবা শুধু ছাত্র এবংগরীব মানুষদের জন্য ।সে ক্ষেএে ছোট যে কোন সমস্যায় ফ্রী প্রেসক্রিপশন সেবা দেওয়া হয় । *,, শর্ত প্রযোজ্য www.Amarhomoeo.com

🛑🛑🛑***তবে, সেক্সের সমস্যায় ফ্রী প্রেসক্রিপশন বা টাকার বিনিময়ে প্রেসক্রিপশন সেবা দেওয়া হয় না। টাকার দিয়ে চিকিৎসা নিতে হয় । সমস্যা অনুযায়ী ঔষধ দেওয়া হয় ।

* শর্ত প্রযোজ্য – condition apply
www.AmarHomoeo.com
যৌনরোগে ব্যবহৃত ঔষধ সমুহঃ
আমাদের দেশে পুরুষদের যৌন দুবর্লতার
সমস্যা একটু বেশী। আবার কিছু বিজ্ঞাপনের
বেশীর ভাগই দেখা যায় হোমিও ডাক্তারদের
বিজ্ঞাপন। এতে অনেকের মনে হতে পারে যে,
সম্ভব হোমিওপ্যাথিতে যৌন রোগের সবচেয়ে
ভালো চিকিৎসা আছে। হ্যাঁ, বাস্তবেও
কথাটি সত্য। অন্য যাবতীয় রোগের মতো
যৌনরোগেরও সবচেয়ে ভালো চিকিৎসা আছে
হোমিওপ্যাথিতে। হোমিও ডাক্তারদের কাছে
যৌন দুবর্লতার যত রোগী যান, তাদের
প্রত্যেকেই বলেন যে, এলোপ্যাথিক বা
কবিরাজি চিকিৎসায় তারা কোন
সত্যিকারের উপকার পান নাই। (যতদিন ঔষধ
খাই ততদিনই ভাল থাকি, ঔষধ বন্ধ করলেই
অবস্থা আগের মতো।)
অন্যদিকে মহিলাদেরও যৌন দুরবলতা,
যৌনকর্মে ‍অনীহা ইত্যাদি থাকতে পারে এবং
হোমিওপ্যাথিতে তারও চমৎকার চিকিৎসা
আছে।
আবার নারী-পুরুষ উভয়েরই যৌনশক্তি
মাত্রাতিরিক্ত থাকতে পারে এবং অনেকে
সময়মতো বিবাহ করতে না পারার কারণে
অথবা অকালে স্ত্রীর মৃত্যু-তালাক-বিধবা
হওয়ার কারণে তাদের যৌন চাহিদা পূরণ
করতে পারেন না এবং এই সমস্যা নিয়ে তারা
বিপদে পড়েন। এসব ক্ষেত্রে হোমিও ঔষধের
মাধ্যমে কিছুদিনের জন্য যৌনশক্তি কমিয়ে
রাখা যায় এবং এতে আপনার শরীরের বা
যৌনশক্তির কোন ক্ষতির সম্ভাবনা নাই।
এবারে আসুন কিছু ঔষধ সম্বন্ধে আলোচনা করি
যেগুলো যৌনরোগে ব্যবহৃত হয় ।
=> Lycopodium clavatum:
লাইকোপোডিয়াম ধ্বজভঙ্গের একটি উৎকৃষ্ট
ঔষধ। মাত্রাতিরিক্ত ধূমপানের কারণে
ধ্বজভঙ্গ হলে এটি খেতে পারেন।
লাইকোপোডিয়ামের প্রধান প্রধান লক্ষণ
হলো এদের পেটে প্রচুর গ্যাস হয়, এদের ব্রেন
খুব ভালো কিন্তু স্বাস্থ্য খুব খারাপ, এদের
প্রস্রাব অথবা পাকস্থলী সংক্রান্ত কোন না
কোন সমস্যা থাকবেই, অকাল বার্ধক্য,
সকাল বেলা দুর্বলতা ইত্যাদি ইত্যাদি।
=> Selenium:
যৌন শক্তির দুর্বলতা, দ্রুত বীর্য নির্গত হওয়া,
স্বপ্নদোষ, মাথার চুল পড়ে যাওয়া ইত্যাদি
সমস্যায় সেলিনিয়াম একটি প্রথম শ্রেণীর
ঔষধ। বিশেষতঃ যাদের কোষ্টকাঠিন্যের
সমস্যা আছে, তাদের ক্ষেত্রে এটি ভালো
কাজ করে।
=> Agnus Castus:
সাধারণত গনোরিয়া রোগের পরে যৌন
দুর্বলতা দেখা দিলে এটি ভালো কাজ করে।
পুরুষাঙ্গ ছোট এবং নরম হয়ে যায়, পায়খানা
এবং প্রস্রাবের আগে-পরে আঠালো পদার্থ
নির্গত হয়, ঘনঘন স্বপ্নদোষ হয়।
=> Caladium seguinum:
যারা যৌনমিলনে কোন আনন্দ পান না বা
যৌনমিলনের পর বীর্য নির্গত হয়না বা যাদের
বীর্য তারাতারি নির্গত হয়ে যায় বা যারা
মাত্রাতিরিক্ত হস্তমৈথুন করে দুবর্ল হয়ে
পড়েছেন, তাদের জন্য কার্যকরী।
=> Origanum marjorana:
ওরিগ্যানাম ঔষধটি পুরুষ এবং নারীদের যৌন
উত্তেজনা বৃদ্ধিতে একটি শ্রেষ্ঠ ঔষধ। তবে
এটি নিম্নশক্তিতে খাওয়া উচিত কেননা
উচ্চশক্তিতে কোন ফল পাওয়া যায় না।
=> Moschus Moschiferus:
ডায়বেটিস রোগীদের ধ্বজভঙ্গে এটি ভালো
কাজ করে। এটি ক্ষুদ্রাকৃতি হয়ে যাওয়া
পুরুষাঙ্গকে পূর্বের আকৃতিতে ফিরিয়ে নিয়ে
যেতে পারে।
=> Staphisagria:
পুরুষদের যৌন দুর্বলতা দূর করার ক্ষেত্রে
স্টেফিসেগ্রিয়া একটি শ্রেষ্ঠ ঔষধ। বিশেষত
অতিরিক্ত যৌনকর্ম করার কারণে বা
মাত্রাতিরিক্ত হস্তমৈথুনের ফলে যাদের
ধ্বজভঙ্গ হয়ে গেছে, তাদের ক্ষেত্রে বেশী
প্রযোজ্য। বিয়ের প্রথম কিছুদিনে মেয়েদের
প্রস্রাব সম্পর্কিত অথবা যৌনাঙ্গ সম্পর্কিত
কোন সমস্যা হলে নিশ্চিন্তে
স্টেফিসেগ্রিয়া নামক ঔষধটি খেতে পারেন।
কারণ, স্টেফিসেগ্রিয়া একই সাথে যৌনাঙ্গ
সম্পর্কিত রোগে এবং আঘাতজনিত রোগে
সমান কাযর্কর।
=> Salix nigra:
মাত্রাতিরিক্ত যৌনকর্ম, হস্তমৈথুন, স্বপ্নদোষ
প্রভৃতি কারণে সৃষ্ট পুরুষদের যৌনকর্মে
দুর্বলতা বা অক্ষমতার একটি শ্রেষ্ঠ ঔষধ হলো
স্যালিক্স নাইগ্রা। এসব কারণে যাদের ওজন
কমে গেছে, এই ঔষধ একই সাথে তাদের ওজনও
বাড়িয়ে দিয়ে থাকে যথেষ্ঠ পরিমাণে।
পাশাপাশি অবিবাহিত যুবক-যুবতী বা যাদের
স্বামী-স্ত্রী বিদেশে আছেন অথবা মারা
গেছেন, এই ঔষধ তাদের মাত্রাতিরিক্ত
উত্তেজনা কমিয়ে দিয়ে স্বাভাবিক
জীবনযাপনে সাহায্য করে।
=>Sabal serrulata:
সেবাল সেরুলেটা পুরুষদের যৌনশক্তি বৃদ্ধি
করে এবং পাশাপাশি হজমশক্তি, ঘুম,
শারীরিক শক্তি, ওজন (কম থাকলে) ইত্যাদিও
বৃদ্ধি পায়। এটি মেয়েদেরও যৌন উত্তেজনা
বৃদ্ধি করে থাকে এবং ক্ষুদ্রাকৃতির
স্তনবিশিষ্ট মেয়েদের স্তনের আকৃতি বৃদ্ধি
করে থাকে। বয়ষ্ক পুরুষদের প্রোস্টেট
গ্ল্যান্ডের বৃদ্ধিজনিত যে-কোন সমস্যা এবং
ব্রঙ্কাইটিস নির্মূল করতে পারে।
=>Conium:
স্ত্রী সহবাসের ইচ্ছা অধিক কিন্তু অক্ষম।
সহবাস কালে সোহাগ আলিঙ্গনের সময় লিঙ্গ
শিথিল হয়ে পড়ে।
=>Calcarea Carb:
ক্যালকেরিয়া কার্ব যৌনশক্তি বৃদ্ধির
ক্ষেত্রে একটি উৎকৃষ্ট ঔষধ। বিশেষত মোটা,
থলথলে স্বাস্থ্যের অধিকারী লোকদের
বেলায় এটি ভালো কাজ করে।
=>Natrum carbonicum:
যে-সব নারীদের পুরুষরা আলিঙ্গন করলেই
বীযর্পাত হয় যায় (সহবাস ছাড়াই) অর্থাৎ
অল্পতেই তাদের তৃপ্তি ঘটে যায় এবং পরে আর
সঙ্গমে আগ্রহ থাকে না, তাদের জন্য উৎকৃষ্ট
ঔষধ হলো নেট্রাম কার্ব। এই কারণে যদি
তাদের সন্তানাদি না হয় (অর্থাৎ বন্ধ্যাত্ব
দেখা দেয়), তবে নেট্রাম কার্বে সেই
বন্ধ্যাত্বও সেরে যাবে।
=>Nux Vomica:
নাক্স ভমিকা ঔষধটি যৌন শক্তি বৃদ্ধিতে
একটি শ্রেষ্ঠ ঔষধ বিশেষতঃ যারা শীতকাতর,
যাদের পেটের সমস্যা বেশী হয়, সারাক্ষণ
শুয়ে-বসে থাকে, শারীরিক পরিশ্রম কম করে,
মানসিক পরিশ্রম বেশী করে ইত্যাদি
ইত্যাদি।
=>Titanium:
সঙ্গমে অতি শীঘ্রই বীর্যপাত ও বীর্যপাতলা।
NB- বিস্তারিত জেনে ঔষধ সেবন করুন ।
🌹 সাথে থাকার জন্য