মেয়েদের গোপন কথা
নারীর কাম উত্তেজনা ওতৃপ্তি
নারীর কাম উত্তেজনা
নারীর কাম উত্তেজনা দ্রুত কি ভাবে বৃদ্ধি করা যায়
সে বিষয়েও কামশাস্ত্রে আলোচনা করা হয়েছে।
নিম্নলিখিত উপায়গুলি অবলম্বন করলে দ্রু নারীর
কাম উত্তেজনা বৃদ্ধি পায়।
তা হলোঃ-
১। মুখ, কপাল, গাল ইত্যাদি স্থানে ঘন ঘন চুম্বন করা ও
ধীরেধীরে ঘর্ষণ করা।
২। সঙ্গমের পূর্বে নারী দেহের বিভিন্ন স্থান স্পর্শ
করলে, ধীরে ধীরে নাড়াচাড়া করলে কাম উত্তেজনা
জাগে।
৩। নারীর যৌন ইন্দ্রয়গুলি স্পর্শ, ঘর্ষণ ও মর্দন করা
উচিত।
৪। বিশেষ করে স্তন ও ভগাঙ্কুর মর্দন কাম উত্তেজনার
সহায়ক।
৫। প্রয়োজন হ’লে ধীরে ধীরে আঘাতকরা, দংশন করা
বা নিপীড়ন করা চলে।
৬। সহবাসের আগে উপরোক্ত বিষয়ে স্ত্রীকে
ভালভাবে উত্তেজিত কারা একান্ত আবশ্যক-অন্যথায়
স্ত্রীর অতৃপ্তি থেকে যেতে পারে।
নারীর উত্তেজনার লক্ষণ
নারী উত্তেজিত হ’লে তার কি কি লক্ষণ পেতে
পারে তা এবারে বলা হচ্ছে।
১। নারী উত্তেজিত হ’য়ে পড়লে এবংকামবিহ্বল হলে
তার দু’টি চোখ অর্দ্ধনিমীলিত ও রক্তবর্ণ ধারণকরে।
২। জোরে জোরে নিশ্বাস পড়তে থাকে।
৩। চেহারার মধ্যে উত্তেজনার ভাব স্পষ্ট ফুটে ওঠে।
৪। হাত পা শিথিল হ’য়ে পড়ে।
৫। চোখ বুজে থাকতে চায়।
৬। তার লজ্জা কমে যায়, পুরুষ তার অঙ্গস্পর্শ করলে
সে তাতে বাধা দেয় না।
৭। পুরুষ তার গোপন স্থানে হাত দিলে বা চাপ দিলে
সে তা উপভোগ করে।
৮। সব রকম ভয়, সঙ্কোচ কাটিয়ে সারাটা দেহই সে
পুরুষকে অর্পণ করে।
নারীর তৃপ্তির লক্ষণ
নারী যৌন তৃপ্তি লাভ করলে তার মধ্যে কি কি লক্ষণ
প্রকাশ পায় তা এবারে আলোচনা করা হচ্ছে।
১। দেহ নুইয়ে পড়ে।
২। সারাটা দেহে যেন অবসান আসে।
৩। দ্রুত হৃৎস্পন্দন হ’তে থাকে।
৪। আবেশে চোখ বুজে থাকে।
৫। যোনি থেকে রসস্রাব নির্গত হয়।
৫। নারীর সারা দেহে পুনঃপুনঃ শিহরণ হতে থাকে।
৬। অনেকে পূর্ণ তৃপ্তির আবেশে অজ্ঞান পর্যাপ্ত
হ’তে পারে এমন ঘটনাও জানা যায়।
৭। ধীরে ধীরে গোঁ গোঁ বা প্রাণীর অনুরূপ শব্দ বের
হ’তে পারে।
৮। সে পুরুষকে জোর করে বুকে চেপেও ধরে রাখতে
পারে।
শেয়ার করে আপনার প্রিয় বন্ধু-বান্ধবীদের পড়ার
সুযোগ দিন।
আপনি জেনেছেন….হয়তো সে জানেনা ।আল্লাহ
আপনাকে ভাল রাখুক –আমিন ।
ভালো কিছু পেতে, লাইক বা শেয়ার করুন।